পুলিশ জনগণের বন্ধু এবং জনগণের জানমাল রক্ষা করা সহ তাদের সকল প্রকার কর্মকাণ্ডে আপদে-বিপদে পুলিশ সাথে থাকবে এমনটাই তাদের কর্তব্য তবে বর্তমান পেক্ষাপটে এবং বর্তমান সময়ে পুলিশের কর্মকান্ড দেখে এমনটি বোঝার কোন উপায় নেই মানুষের আপদে-বিপদে না গিয়ে বরং বিপদে পড়া মানুষদেরকেই তারা ব্যবহার করে এবং তাদের থেকে বিভিন্ন ভাবে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি আদায় করে নিচ্ছে এবং সমাজের চোখে তারা নেতিবাচক হিসেবে নিজেদেরকে প্রমাণ করেছে কিছু মাস আগে করোনাভাইরাস এর সময় দেখা গিয়েছিল পুলিশ মানবিকতার পরিচয় দিয়েছিল এবং তখন মানুষের মনে তাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ ছিল এবং নেতিবাচক প্রভাব ছিল সেগুলো আস্তে আস্তে কাটিয়ে উঠতে শুরু করেছিল কিন্তু সেটি আর বেশিদিন রইল না


গণবিরোধী পুলিশী ব্যবস্থার বিপরীতে জনগণের জীবন, অধিকার এবং মর্যাদা রক্ষায় সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থার আমূল সংস্কার করে ’পুলিশ কমিশন’ গঠনের আহবান জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব। আজ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিৃবতিতে তিনি এ আহবান জানান।

আ স ম রব বলেন, বিচারবহির্ভূত কর্মকান্ড, পুলিশ হেফাজতে মৃ’ত্যু, মানবাধিকার লঙ্ঘনসহ বিভিন্ন বেআইনি কর্মকাণ্ডে পুলিশের সম্পৃক্ততায় প্রমাণ হয় বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থা দিয়ে আইনের শাসন ও জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়না। একজন নাগরিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশি হেফাজতে ..করা দু’শ বছরের বৃটিশ আমলেও সংঘটিত হবার প্রমান পাওয়া যায়নি।

অথচ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীন রাষ্ট্রে প্রতিনিয়ত নাগরিককে .. করা রাষ্ট্রীয় কর্তব্যে রূপান্তরিত হয়েছে যা মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মানের শামিল। পুলিশকে স্বাধীন দেশের উপযোগী গণমুখী, মানবিক, দক্ষ, উচ্চতম মূল্যবোধ সম্পন্ন এবং শাসনতান্ত্রিক দায়বদ্ধতার আওতায় নিয়ে আসার জন্য পুলিশি ব্যবস্থার সংস্কার জরুরি।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ পুলিশ বিচারবহির্ভূত কর্মকান্ড, ক্রস.... হুমকি দিয়ে অর্থ আদায়, গায়েবি মামলা দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে স্তব্ধ করা, নিরপরাধ মানুষকে অপরাধী সাজানোসহ ব্যাপক বেআইনি কর্মকাণ্ড সংঘটনের মাধ্যমে জনজীবনকে সংকটে ফেলে দিয়েছে এবং পুলিশ যে জনগণের বন্ধু এই বুলি এখন তামাশায় পরিণত হয়েছে।

ক্ষমতাসীন সরকারের বেআইনি আদেশ-নির্দেশ পালন করতে করতে পুলিশ তার মৌলিক কর্তব্য ভুলে গেছে যা কোনোভাবে মেনে যায় না। পুলিশের কর্মকান্ড নিয়ে জনমনে যে ক্ষোভের জন্ম হচ্ছে তাও নিরসন করা খুব জরুরি। স্বাধীন দেশের উপযোগী পুলিশ বাহিনী গঠনের লক্ষ্যে বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থার আমূল সংস্কারের জন্য ’পুলিশ কমিশন’ গঠন করতে হবে।।

দেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বর্তমান সময়ে নেতিবাচক কর্মকান্ড নিয়ে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন সেই সাথে সম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া বেশ কিছু ঘটনা তার নজির বহন করেছে বিভিন্নভাবে সাধারণ মানুষের প্রতি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর যে মনোভাব এবং তাদেরকে যেভাবে নেতিবাচক কর্মকাণ্ডে দেখা যাচ্ছে প্রতিনিয়ত ও তাতে করে মানুষের মধ্যে এ ধারণা জন্মেছে পুলিশের প্রতি

Sites