তথ্যপ্রযুক্তিগত উন্নয়নের দিক থেকে বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে তরতর করে। এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশ প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করে সেখান থেকে সুবিধা নিচ্ছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও এই ডিজিটাল বিপ্লবের ছোঁয়া লেগেছে, তথ্যপ্রযুক্তির এই বিপ্লবে বাংলাদেশ ও পিছিয়ে নেই শিক্ষাক্ষেত্র থেকে শুরু করে ব্যবসা-বাণিজ্য বাজার ঘাট সব জায়গায় এই তথ্যপ্রযুক্তিরকল্যাণে এখন আরো সহজতর হয়ে গেছে মানুষের কর্ম ব্যস্ত জীবনকে আরো সহজতর করে দিয়েছে এই বিপ্লব। চাইলে মানুষ এখন বাজারে না গিয়ে নিজের ঘরে বসেই অনলাইন থেকে নিজেদের পছন্দমতো এবং প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি কিনতে পারেনএবং এতে করে নিজের সময় বাঁচানো সম্ভব অন্যদিকে দেশে ই-কমার্স সাইট গড়ে উঠেছে ব্যাপকহারে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ই-কমার্স সাইট জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এবং এখানে কাজ করার জন্য অনেক উদ্যোক্তারা এগিয়ে আসছে এবং এই ই-কমার্স সাইটের উপর তাদের আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

 
বিংশ শতাব্দীর শেষের দিকেই উন্নত দেশগুলোতে ডিজিটাল বিপ্লব শুরু হবার পর একুশ শতকের শুরুতে তার ছোয়া লেগেছে উন্নয়নশীল দেশগুলোতেও । তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তির বিস্ময়কর এই সম্প্রসারণ বিশ্বে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে আধুনিকতা ও নতুন মাত্রা নিয়ে এসেছে - যা ই-কমার্স নামে সমধিক পরিচিত ।
কর্মব্যস্ত জীবনে সহজলভ্য হওয়ায় অনলাইন শপিং এ অনেকেই বর্তমানে স্বাচ্ছন্দ বোধ করে। শুধু ই-কমার্স সাইটগুলোই নয়, অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা বিভিন্ন ধরনের সেবা ফেসবুকসহ নানা ধরনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিচ্ছেন। এতে করে ক্রেতারাও খুশি আর উদ্যোক্তা বড় ধরনের খরচ ছাড়া সেবা দিতে পারছেন। তবে একটা নির্দিষ্ট গণ্ডি শেষে ব্যবসার আকার বাড়লে ই-কমার্স পরিচালনা করতে হয় ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই।
ইকমার্স সাইট কেবলমাত্র ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করে এমনটা নয়, গ্রাহকের কাছে বিশ্বস্ততা বাড়াতে, নিজের ব্যবসার একটি ব্রান্ডিং তৈরী করতেও নিজস্ব একটা ওয়েবসাইট প্রয়োজন।
তবে অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ক্ষেত্রে সাধ ও সাধ্যের সম্বনয় ঘটেনা বলে ইচ্ছা থাকলেও নিজের ওয়েবসাইট সাজিয়ে ব্যবসা করা হয় না অনেকের। নিজস্ব ইকমার্স সাইট বানাতে ওয়েব ডেলেলপার খুঁজে বের করা , পরবর্তীতে ওয়েবসাইট মেইনটেইন করা , এসব খরচ করে ক্রেতার হাতে পণ্য পৌঁছানো যেন দুরূহ ব্যাপার হয়ে যায়। তার ওপর ওয়েবসাইটের পেছনে অর্থ খরচ ব্যবসার মূলধনকেই বাড়িয়ে দেয়।
এসব নতুন ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের কথা মাথায় রেখেই হাজির হয়েছে অর্ডারসপ ডট নেট ।
ordershop.net এমন একটি প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে একজন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা নিজেই নিজের একটি ইকমার্স সাইট খুলে ফেলতে পারবেন। কোন প্রকার ডেভেপলার কিংবা কোডারের সহযোগিতার প্রয়োজন পড়বে না। একজন মানুষের যদি ফেসবুক কিংবা ইন্টারনেট ব্যবহারের মত জ্ঞান থাকে, তাহলেই তার পক্ষে একটি ইকমার্স সাইট খুলে ফেলা সম্ভব। বাড়তি কোনো কারিগরি জ্ঞানেরও প্রয়োজন নেই।
কেবলমাত্র একটি ইমেইলের মাধ্যমে রেজিষ্ট্রার করেই একজন উদ্যোক্তা ওডারসপের মাধ্যমে তার ইকমার্স সাইটটি মাত্র ২০-৩০ মিনিটের মধ্যে চালু করতে পারবেন। আর এরপর ফেসবুক কিংবা অনন্য সোস্যাল মিডিয়াতে যেভাবে ছবি আপলোড করা হয়, সেইভাবে সাজিয়ে নিতে পারবেন নিজের ইকমার্স সাইটটি।
নিজের নামে কিংবা নিজের প্রতিষ্ঠানের নামে রেজিষ্টার করা ডোমেইনটিও এক ক্লিকের মাধ্যমে কানেক্ট করার সুবিধা রয়েছে ওডারসপে।
আপলোড করতে পারবেন বিস্তারিত বর্ণনাসহ পণ্যের ছবি। এ ছাড়া বিভিন্ন সাইজের বাহারি রঙের ব্যাপারটাও উল্লেখ করে দিতে পারেন। সাথে যোগ করে দিন পণ্যের দাম। এ সবই হবে বিনা পয়সায়।
ক্রেতা উদ্যোক্তার ইকমার্স সাইটে এসে পছন্দমত পন্য কা্র্টে এ্যাড করতে পারবেন । চেকআউট করে বের হয়ে গেলে উদ্যোক্তা পাবেন ই-মেইল অ্যালার্ট। অ্যাডমিন প্যানেল থেকে উদ্যোক্তা অর্ডারগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন । শুধু তাই নয়, উদ্যোক্তা সাইটের ভিজিটর রিপোর্টও পাবেন। আর এতে উদ্যোক্তা জানতে পারবেন কতজন তার পণ্য সম্পর্কে খোঁজখবর নিচ্ছে। বিক্রেতারা তাদের ফেইসবুক পেইজের সাথেও লিংক জুড়ে দিতে পারবেন সব পণ্যের। পাশাপাশি আছে নিজের ব্র্যান্ড ভ্যালু প্রতিষ্ঠা করার মতো সুযোগ।
অর্ডারশপের প্রতিষ্ঠাতা ফরহাদ করীব বলেন, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসগুলো একচেটিয়া জায়গা দখল করে নিচ্ছে, কিন্তু মার্কেটপ্লেসগুলোর প্রতিযোগিতামূলক বাজারে অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারাই শুরুতেই হোঁচট খায়, সেই সাতে মার্কেটপ্লেসগুলোর মাধ্যমে একজন উদ্যোক্তার পরিচয় কেবল সেলার হিসাবেই হয়, কিন্তু নিজের ব্রান্ডিং প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়ে উঠে না । তবে নিজের এই ব্রান্ডিং প্রতিষ্ঠায় যে খরচ সেটা অনেকের পক্ষেই বহন করা সম্ভব হয় না, সেই প্রতিবনন্ধকতা দূর করতে অর্ডারশপের পথচলা, আর এর মাধ্যমে গ্রাহকরা কিভাবে উপকৃত হচ্ছেন সেটা আমাদের গ্রাহকরাই সবচাইতে ভালো বলতে পারবেন ।
ordershop
          


দিন দিন বিশ্ব প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে পড়ছে নতুন নতুন প্রযুক্তির আগমনের ফলে মানুষের জীবনযাত্রা আরো সহজ থেকে সহজতর হয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত নাম এবং মানুষ ও প্রযুক্তির সুবিধা নির্দ্বিধায় গ্রহণ করছে এবং এই সুবিধার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করছে না মানুষের কর্ম ব্যস্ত জীবনের আরও একটু সহজলভ্য করার জন্য তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটেছে তা এক নতুন বিপ্লব সৃষ্টি করেছে গোটা বিশ্বে। তথ্যপ্রযুক্তির এই বিপ্লব মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থাকে করেছে আরো সুদৃঢ় ও এবং মানুষ এখন এগুলোর প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে দিনকে দিন সেই সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের তথ্যপ্রযুক্তিগত এই উন্নয়ন ব্যাপকভাবে মানুষকে আকৃষ্ট করেছে

Sites