সম্পর্ক মূলত গড়ে ওঠে একে অপরের প্রতি বিশ্বাস এবং আস্থা থাকার কারণে তবে অনেক সময় ভুল বোঝাবুঝি হয়ে যায় এসব সম্পর্কের মধ্যে এবং সম্পর্কে ফাটল ধরে তবে সম্পর্কের সবথেকে সহজ কাজ হল ভুল বোঝা একে অন্যকে বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত করা একে অন্যের দিকে আঙ্গুল তোলা সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার কারন গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম একটি তবে মানুষের সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে অনেক কিছু বিসর্জন দিতে হয় এবং নমনীয়তা বরণ করতে হয় অনেক ক্ষেত্রে

যে কোনো আসক্তিই ক্ষতিকর। তবে ’মায়া’ ব্যাপারটা তারচেয়েও বেশি মারাত্মক। আপনার খুশি, সুখ, সাফল্য শেয়ার করার জন্য অনেককেই পাবেন কিন্তু মন কেমন করা মুহূর্তে, বুকের পাঁজর ভাঙার কঠিন সময়ে হাউমাউ করে কাঁদার জায়গা খুব কম মানুষেরই থাকে। মন খুলে কাঁদার একটি জায়গা যার আছে, তার মত ভাগ্যবান আর কেউ নেই।

সবচেয়ে সহজ কাজ হলো ভুল বোঝা, কারো দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তোলা। ভেতরের ভাঙচুর দেখা যায় না। সারা দুনিয়া আঙ্গুল তুললেও লাগে না। কিন্তু যাকে ’টেকেন ফর গ্রান্টেড’ ধরে নেওয়া হয়; তার ছুঁড়ে দেওয়া প্রশ্ন রক্তাক্ত করে। ভালোবাসা কখনো কখনো খুব অদ্ভুতভাবে মানুষকে অসহায় করে দেয়। যার জন্য আপনি আপনার গোটা পৃথিবীটা থামিয়ে রেখেছেন; তার জীবনের কোথাও আপনি নেই। এর চেয়ে ভয়ঙ্কর অনুভূতি আর কিছু হতে পারে না।

হারিয়ে খোঁজার চেয়ে; পাশে থাকতেই তীব্রভাবে ভালোবাসা উচিত। ভালোবাসাটাও ভীষণ এক অভ্যেস, যা প্রতি মুহূর্তে যত্ন করতে হয়। প্রতিটা মানুষের জীবনে একটা শক্ত কাঁধ দরকার। শুধু ভর করার জন্য নয়, কাঁদার জন্যও।
নিজের প্রয়োজনে আমরা কাউকে বলি দিই আবার কাউকে আগলেও রাখি! আপনার সমস্ত খুঁটিনাটিতে যে মিশে থাকে। আপনাকে প্রশ্নহীন ভালোবাসে, ভরসা করে সেই আপনার বন্ধু, নিজের মানুষ। বাকি পৃথিবীটা শুধুই দেনা পাওনার হিসেবের।

প্রতীক্ষাতে কখনো কখনো প্রাপ্তির আনন্দ থাকে। শুধু চুপচাপ পাশে বসে থেকেও বুঝিয়ে দেওয়া যায়, ’আমি আছি’। রাগ, অভিমান, মন খারাপ - ৩টা আলাদা শব্দ। শব্দ তিনটার হাত ধরে হাঁটে আরেকটা শব্দ-’অধিকার’। যেখানে অধিকার নেই সেখানে বাকি ৩টা ব্যাপারও থাকে না। জীবনজুড়ে রাগের চেয়ে অভিমানের জায়গাটা বেশি হলে নিদারুণ যন্ত্রণা।

মানুষের ইচ্ছে শক্তির চেয়ে বড় কোন শক্তি নেই দুনিয়ায়। হয় জয় নয়তো ক্ষয়। মাঝামাঝি বলে কিছু নেই। আপনার গলার স্বরের উঠানামায় যে আপনাকে পড়তে পারে; পৃথিবীতে তারচেয়ে আপন আর কেউ থাকতে পারে না।

প্রেম মানেই সমর্পণ। প্রেম মানেই ঈশ্বরজ্ঞানে প্রার্থনা। একটা সম্পর্কে দুইজনেরই সমান দায় থাকে। সম্পর্কটা বিছানা পর্যন্ত গড়ানোর আগে পারস্পরিক বোঝাপড়াটা সেই লেভেলের হওয়া উচিত। একটা সম্পর্কে থেকে সেই সম্পর্কের দায় অস্বীকার করাটা শুধু প্রতারণা নয় রীতিমত অপরাধ। আবার সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর প্রতারণার অভিযোগ আনাটাও অন্যায়। দুইটা প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের সম্পর্কে দুজনের সম্মতিতে অনেক কিছুই ঘটতে পারে। আর তার দায় কিন্তু দুজনেরই। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর দায়টা একজনের ঘাড়ে চাপিয়ে দেওয়ার যে অপচেষ্টা সেটা কোনভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। দুইটা প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের পারস্পরিক সম্মতিতে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে পরবর্তীতে ইস্যু করা কোনওভাবেই কাম্য নয়। কারো ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ভঙ্গ করার অধিকার আপনার নেই। আগে সম্পর্ককে সম্মান করতে শেখেন। আজকের ভালো সম্পর্ক কাল বিষিয়ে যেতেই পারে। তাই বলে অতীত হয়ে গেলেই সম্পর্ককে অসম্মান করতে হবে! এটাও এক ধরনের বিকার।

সবকিছু মানুষের হাতে থাকে না। কোন এক অদৃশ্য সুতোর টানেই জীবন বাঁধা পড়ে থাকে। এটা মোহ নাকি মায়া? সেই দ্বন্দে না যাই। তবে মনের হদিশ খুব কম মানুষই ঠিকঠাক মতন জানতে পারে; এমনকি যার মন সে নিজেও কখনো কখনো হিসেব মিলাতে পারে না। অনুভূতির পারদ বড্ড ওঠানামা করে। এটার সাথে তাল মেলাতে পারাটাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ।

যারা মনের কারবারী- এই জগতে তারাই সবচেয়ে বেশি বিপদে থাকে। মনের বিনিময় তো শুধু মনের সাথেই হয়। পৃথিবীর বাকি সব হিসেব-নিকেশ সেখানে তুচ্ছ। মোহ কেটে যায় তবু মায়া কাটে না। কারো কারো গোটা জীবনই চলে যায় মায়া কাটানো শিখতে।



মানুষ কখনো একা চলতে পারে না কোন না কোন সময় তার একটা সঙ্গী প্রয়োজন হয় বিশেষ করে নারীদের ক্ষেত্রে জীবনে একটা শক্ত কার্ড দরকার শুধুমাত্র ঘর করার জন্য নয় জড়িয়ে ধরে কাঁদার জন্য হলেও মানুষ একটা সময় গিয়ে কখনো না কখনো এটি অনুভব করে যে তার সঙ্গীর প্রয়োজন এবং ভালো-মন্দ শেয়ার করার জন্য তার প্রয়োজন সংগী

Sites