বাংলাদেশের সাবেক সেনাপ্রধান ও রাজনীতিবিদ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ টনা ৯ বছর পর্যন্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন তিনি,। তিনি জাতীয় পার্টি নামকরন করে রাজনৈতিক দল প্রতিষ্ঠা করেন যা পরবর্তীতে বেশ কিছু উপদলে বিভক্ত হয়। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর-৩ আসন হতে তিনি জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং তিনি একাদশ জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন ।



হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টি নিয়ে ভবিষ্যৎ বাণী করেছেন সম্প্রতি বিএনতি যোগ দেয়া রাজনৈতিক নেতা ও কলাম লেখক গোলাম মাওলা রনি।

আজ সোমবার (১৫ জুলাই) নিজের ফেসবুক পেইজে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি এ ভবিষ্যৎ বাণী করেন। তার স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো।

এরশাদের জাতীয় পার্টির ভবিষ্যত নির্ভর করছে আওয়ামীলীগের উপর! প্রধানমন্ত্রী যার প্রতি দয়া করবেন – তিনিই হবেন পার্টি চেয়ারম্যান! অন্যদিকে, প্রধান মন্ত্রীর করুনা ছাড়া জাতীয় পার্টি সংসদে তাদের নেতা নির্বাচন করতে পারবে না!

এরশাদের ভাই জনাব জিএম কাদের এবং প্রথম স্ত্রী রওশন এরশাদ উভয়কেই এবার প্রধানমন্ত্রীর নিকট নিজেদের আনুগত্য প্রমান করতে হবে! আওয়ামী আদর্শের কোষ্ঠী পাথরে মাথা রেখে তাদেরকে পরস্পরের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে নিজেদের সক্ষমতা প্রমান করতে হবে! তা না হলে ভাগ্যের সিকা ঝুলবে না!

উল্লেখিত কর্ম করতে গিয়ে আগামী কয়েক দিনে বহু নাটক, বহু সিনেমা এবং পুতুল নাচের মহড়া হবে! এরশাদের বারিধারার বাসা, বনানী অফিস, কাকরাইল অফিস এবং রংপুর পল্লীনিবাসে হাতাহাতি বা আরো অনেক মন্দ কিছু ঘটতে পারে! আর তখন জাতীয় পার্টির লোকজন মর্মে মর্মে বুঝবেন যে জনাব এরশাদ বিগত দিনে কতটা কষ্ট করে দল চালিয়েছেন!

উল্লেখ্য,শারীরিক অসুস্থতার দরুন ২০১৯ সালের ২৬ জুন তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে ৪ জুলাই তাকে নেওয়া হয় লাইফ সাপোর্টে। তিনি ২০১৯ সালের ১৪ জুলাই সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন

Sites