ওশেনিয়া ‍অঞ্চলের দ্বীপ-মহাদেশ অস্ট্রেলিয়া এখন অভিবাসন প্রত্যাশীদের স্বর্গ হয়ে উঠেছে। শরীর জুড়ানো আলো-হাওয়া আর হাজারো দ্বীপের পরতে পরতে ছড়িয়ে থাকা অবারিত প্রকৃতি ক্ষুদ্রতম এই মহাদেশকে যেমন অতুলনীয় রূপের অধিকারী করে তুলেছে, তেমনি সামাজিক নিরাপত্তা আর উন্নত জীবনমান বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহত্তম এই দেশটিকে বসিয়ে দিয়েছে অভিবাসন আকর্ষণের কেন্দ্রে।
তাই ৫০ হাজার বছর ধরে চলে আসা অভিবাসনের ইতিহাস নতুন মোড় নিয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম প্রবাল প্রাচীর গ্রেট বেরিয়ার রিফ এর দেশ অস্ট্রেলিয়ায়।

ভারত মহাসাগর, তিমুর, আরাফুরা, তাসমান ও প্রবাল সাগর এবং টরেস ও ব্যস প্রণালীর বেড়ে শান্তির সওদা নিয়ে শুয়ে থাকা দেশটিতে এখন বাংলাদেশিদের জন্যও স্থায়ী বসবাসের সুযোগ তৈরি হয়েছে। নেওয়া যাচ্ছে বিজনেস মাইগ্রেশনের সুযোগও। আর অভিবাসনের এই সুযোগ নিতে বেশ কিছু প্রোগ্রাম ওপেন করেছে অস্ট্রেলিয়া। আপনি আপনার সামর্থ ও পরিকল্পনা বুঝে এর যে কোনো একটির মাধ্যমে স্থায়ী হয়ে যেতে পারেন ক্যাঙ্গারু আর ক্রিকেটের দেশ অস্ট্রেলিয়ায়।

যেসব প্রোগ্রামে অস্ট্রেলিয়া যাওয়া যাবে
আপনি কোন প্রোগ্রামে অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী বসবাসের সুযোগ নিতে চান তা ঠিক করতে প্রোগ্রামগুলো সম্পর্কে জেন নিন।

আপনি সুযোগ নিতে পারেন বিজনেস মাইগ্রেশন, স্কিলড মাইগ্রেশন, স্পাউজ মাইগ্রেশন বা প্যারেন্ট মাইগ্রেশন, অস্ট্রেলিয়া গ্রাজুয়েট, ‍স্কিলড ইন্ডিপেন্ডেন্ট ভিসা (সাবক্লোস ১৮৯), স্কিলড নমিনেটেড ভিসা (সাবক্লোস ১৯০), স্কিলড নমিনেডেট (প্রভিশনাল) ভিসা (সাবক্লোস ৪৮৯), স্কিলড রিজিওনাল ভিসা (সাবক্লোস ৮৮৭) এবং ফ্যামিলি স্পন্সরশিপ ভিসা: ফ্যমিলি স্পন্সরড (প্রভিশনাল) ভিসা (সাবক্লোস ৪৮৯) এর।

স্থায়ী নাগরিকত্ব পেতে যে সব পেশাগত দক্ষতা প্রয়োজন
এক. ৪০০ এর অধিক পেশার ক্যটাগরি রয়েছে শর্তে। সেখান থেকে যে কোন একটি পেশায় দক্ষতা থাকতে হবে।
দুই. সাবক্লাস ১৮৯, ১৯০ এবং ৪৮৯ এর মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় চাকুরি নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে পারবেন।
তিন. নিয়োগকর্তা স্পন্সরশিপ ভিসা সাবক্লাস ৪৫৭, ১৮৬ এবং ১৮৭ এর মাধ্যমে রযেছে অষ্ট্রেলিয়ায় চাকুরি নিয়ে পরিবারসহ বসবাসের সুযোগ
চার. সাবক্লাস ৪৫৭ এবং ১৮৬ এর মাধ্যমে একযোগে আবেদন করে দ্রুত স্থায়ী নাগরিকত্ব নেয়া যায়।

যে সব পেশাজীবী আবেদন করতে পারবেন
তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ (আইটি প্রফেশনাল), একাউন্টিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট, মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস, প্রকৌশলী, ডাক্তার, নার্স, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, টেকনোলজিস্ট, ফিজিওথেরাপিস্ট, কৃষিবিদ, মানব সম্পদ উপদেষ্টা, নির্মাণ প্রকৌশলের প্রজেক্ট ম্যানেজার।

শিক্ষাগত যোগ্যতা
স্নাতক-সন্মান এবং পিএইচডি সম্পন্ন ব্যক্তিরা আবেদন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আইএলটিএস’এ ৬ দশমিক ৫ স্কোর পেতে হবে।

কাজের অভিজ্ঞতা
নিজ কর্মক্ষেত্রে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতার সঙ্গে পেশাগত অভিজ্ঞতার মিল থাকতে হবে।

আপনার জন্য ওয়ার্ল্ড ওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্ট লিমিটেড
ওয়ার্ল্ড ওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্ট লিমিটেড বেশ সাফল্যের সঙ্গেই অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসনের জন্য গ্রাহকদের পরামর্শ সেবা দিয়ে আসছে। আগ্রহীদের অস্ট্রেলিয়ায় স্বায়ী নাগরিকত্ব নিয়ে দিতে পরামর্শ এবং প্রক্রিয়াগত কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। গ্রাহকদের স্কিলড, বিজনেস এবং পরিবারের স্থায়ী নাগরিকত্ব ভিসা পেতে পরামর্শ ও সহযোগিতাও দিচ্ছে।


প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও চিফ কনসালট্যান্ট ড. শেখ সালাহউদ্দিন বলেন, আমাদের আইনজীবীরা গ্রাহকের প্রয়োজনীয় তথ্য ও কাগজপত্র সংগ্রহ করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। আমরা গ্রাহককে সেরা এবং উপযোগী সুযোগটাই জানাই। আবেদনের আগেই সরকারি-বেসরকারি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, যোগ্যতা পরবর্তী ধাপগুলো কিভাবে সহজতর করা যায় সে বিষয়ে আমরা পরামর্শ দিয়ে থাকি। এখানে একজন গ্রাহক তার ইমিগ্রেশন আইনজীবীর সঙ্গে সরাসরি কথা বলার সুযোগ পান। ফলে সব বিষয়ের খুঁটিনাটি জানতে পারেন।
অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসনের জন্যে আরো বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করতে পারেন This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it. , This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it. এবং This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it. এই মেইল ঠিকানায়। ভিসিট করুন www.wwbmc.com. ওয়েবসাইটে। সরাসরি ড. সালাহউদ্দিনের সঙ্গে ফোনে কথা বলুন +৬০১৬৮১২৩১৫৪ এবং +৬০১৪৩৩০০৬৩৯ এই নাম্বারে।

ঢাকার উত্তরায় ৭ নং সেক্টরের খান টাওয়ারে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড মাইগ্রেশন লিমিটেডের অফিসেও খোঁজ নিতে পারেন। ফোনে কথা বলতে পারেন ০১৯৬৬০৪১৫৫৫ নাম্বারে, ০১৯৬৬০৪১৮৮৮ নাম্বারে এবং ০১৯৭৭০১৪৭৭৮ নাম্বারে।

Sites