এটি ছিল ঐতিহাসিক একটি ম্যচ, টি-টোয়েন্টিতে এই প্রথম ভারতের বিপক্ষে কোনো ম্যাচে জয় পেল টাইগারা। আর এই জয় এলো ১০০০ তম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে। এর আগে পর্যন্ত আটবার বিরাট কোহলিদের মুখোমুখি হয়ে সবকটি ম্যাচই হেরেছে বাংলাদেশ। দূষিত দিল্লির আবহাওয়ায় সাকিববিহীন স্বাগতিকদের বিপক্ষে ছক্কা মেরে জয় ছিনিয়ে এনে দিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ



হোক দিল্লি বা চট্টগ্রাম, টেস্ট বা একদিনের ম্যাচ, বাংলাদেশ-ভারত দ্বৈরথ মানেই যেন টানটান উত্তেজনা। মুখোমুখি লড়াইয়ের সময় যত ঘনিয়ে আসতে থাকে, সারা বিশ্বের অগণিত ক্রিকেটপ্রেমীর মধ্যে উত্তেজনার পারদ যেন তুঙ্গে চড়তে থাকে। ক্রিকেটের জনপ্রিয় সংস্করণ টি-টোয়েন্টি সেই উত্তেজনার মাত্রায় আগুনে রীতিমতো ঘি ঢেলে দেয়।


তবে তুমুল জনপ্রিয় এ সংস্করণে ভারতের মুখোমুখি হওয়ার স্মৃতি এত দিন মোটেই সুখকর ছিল না বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য। আর হবেই বা কী করে! এর আগের আটবারের দেখায় একটি জয়ও ঘরে তুলতে পারেনি টাইগাররা। কিন্তু গতকাল রোববার রাতে দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে এবার ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ। টিম ইন্ডিয়াকে সাত উইকেটে পরাজিত করে জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। আর সেই থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছেন খেলোয়াড়রা। এবার তাঁদের সঙ্গে সেলফি তুলতে দেখা গেল বলিউড তারকা আরবাজ খানকে।

বিজয়ের পর বেশ হাসিমুখেই দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী বিমানবন্দরে পৌঁছায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তাঁদের এবারের গন্তব্য ভারতের রাজকোট শহর। সেখানেই ৭ নভেম্বর দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। তবে বিমানবন্দরে জয়ী মুশফিক, রিয়াদ, লিটনদের পেয়ে সেলফি তুলতে ভুল করেননি খানদান পরিবারের আরবাজ খান। সুপারস্টার সালমান খানের ভাই আরবাজের সঙ্গে এ সময় ক্রিকেটারদের বেশ প্রাণবন্ত দেখাচ্ছিল।

টাইগারদের সঙ্গে তোলা ওই ছবিটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে নিজের অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেন আরবাজ। ’বিজয়ী বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সঙ্গে দিল্লি বিমানবন্দরে দেখা হলো। মুশফিকুর রহিম ছিলেন অসাধারণ। সামনে আরো উত্তেজনাপূর্ণ লড়াই দেখার অপেক্ষায় রইলাম,’ পোস্টে লেখেন আরবাজ।


আরবাজের ওই পোস্টটি এরই মধ্যে নেটিজেনদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এতে লাইক পড়েছে ২৩ হাজারের বেশি। এ ছাড়া মন্তব্যের ঘরে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে টাইগারদের অভিনন্দন জানাচ্ছেন অনেকেই।

যা-ই হোক, আর কিছুদিন পর বড়পর্দায় উঠতে যাচ্ছে আরবাজ খান প্রযোজিত ছবি ’দাবাং থ্রি’। এতে বরাবরের মতোই অভিনয় করছেন সালমান খান ও সোনাক্ষি সিনহা। ছবিটি পরিচালনা করেছেন প্রভুদেবা।


উল্লেখ্য,আরবাজ খান হলেন একজন ভারতীয় অভিনেতা, পরিচালক এবং চলচ্চিত্র প্রযোজক, যিনি হিন্দি চলচ্চিত্রের তার কাজের জন্য সুপরিচিত। তিনি ১৯৯৬ সালে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশের পর থেকে তিনি অনেক চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্রে এবং সহ-কারী চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তিনি নিজের চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থা আরবাজ খান প্রােডাকশন নির্মাণ করেন এবং ২০১০ সালের "দাবাং" চলচ্চিত্র তার বড় ভাই সালমান খানকে নিয়ে নির্মানের মাধ্যমে চলচ্চিত্র প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। ছবিটি সর্বকালের সর্বোচ্চ ব্যবসাসফল চলচ্চিত্রের তালিকায় প্রবেশ করে।

Sites